Home ব্রেকিং উন্নয়নে গণতন্ত্র না থাকলে উন্নয়ন হয় না : ড. কামাল

উন্নয়নে গণতন্ত্র না থাকলে উন্নয়ন হয় না : ড. কামাল


বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, প্রবৃদ্ধি হলেই তো হবে না। জনগণকেও তার সুফল ভোগ করতে হবে। আমি নেতিবাচক কিছু বলবো না। উন্নয়ন হয়েছে আলহামদুলিল্লাহ। কিন্তু সেটা শুধু ওপরতলার লোকদের জন্য নয়।

বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর বিজয় নগরে ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

ড. কামাল বলেন, প্রবৃদ্ধি ৮%, ৮% শুনতে শুনতে আইয়ুব খানের কথা মনে পড়ে। উনি তো ১১% উন্নয়ন করেছিলেন। আমরা তো ৬ দফা, ১১ দফা বাদ দেইনি।

তিনি বলেন, উন্নয়নে গণতন্ত্র না থাকলে উন্নয়ন হয় না। গণতন্ত্র থাকলে, ক্ষমতার মালিক জনগণ হলে সত্যিকার অর্থে উন্নয়ন হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও বলে গেছেন, জনগণ যদি ক্ষমতার মালিক না হয় তাহলে নেই উন্নয়নের কোনো অর্থ থাকে না।

প্রবীণ এই রাজনীতিবিদ বলেন, ‘গণতন্ত্র রাখ, এখন উন্নয়ন হোক’- এটা পাকিস্তানের স্বৈরশাসক আইয়ুব খানের কথা। ৪০-৫০ বছর আগে এসব কথা বলা হতো। আমাদের এখন এসব ভুলে যাওয়ার কথা। ব্রিটিশ রাণীর শাসনামলে বলা হতো, আমরা উন্নয়ন করে দিচ্ছি। তোমরা আমাদের প্রজা হয়ে থাক। তারা বলতো, ‘বাঙালিরা অকৃতজ্ঞ তারা উন্নয়ন বোঝে না।’

এর আগে, দুপুরে জরুরি বৈঠকে বসে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটি।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, অজস্র বাধা-বিপত্তি, হামলা, মামলা, অগ্নিসংযোগ, গুলি, বোমাবাজি, প্রশাসনের পক্ষতাতিত্বতমূলক আচরণ, নির্বাচন কমিশনের নিষ্ক্রীয়তা, পুলিশের দলীয় ক্যাডারের মতো বিরোধীদলীয় প্রার্থী ও নেতা-কর্মীদের উপর অব্যাহত অন্যায় আচরণ, গায়েবি মামলা, বাড়িবাড়ি গিয়ে হুমকি-ধামকি, পাইকারি হারে ধরপাকড়-গণগ্রেফতার সত্ত্বেও সারাদেশে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রতীক ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে এবং দেশবাসী দীর্ঘ ১০ বৎসর পর আগামী ৩০ ডিসেম্বর তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন।

ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীরা বিভিন্নভাবে আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও তাদের কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে দেশবাসীর মধ্যে যে গণজোয়ার সৃষ্টি করেছেন, আমি আশা করি আগামী ৩০ ডিসেম্বর এ দেশের ভোটারা তাদের সুচিন্তিত মতামত ধানের শীষের পক্ষে প্রদান করে বহু আকাঙিক্ষত পরিবর্তন সাধনে মূল্যবান অবদান রাখবেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশজুড়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী, নেতা, কর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে একধরনের সাঁড়াশি অভিযান চলছে। যে অভিযানে সরকারের প্রশাসন, আইন-আদালত, পুলিশসহ অন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, আওয়ামী সন্ত্রাসী বাহিনী, সর্বোপরি নির্বাচন কমিশন যুক্ত।সম্মিলিত সকল প্রতিরোধ মোকাবিলা করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে টিকে আছে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রমুখ