Home খেলাধূলা রংপুরকে হারিয়ে শুভসূচনা চিটাগংয়ের

রংপুরকে হারিয়ে শুভসূচনা চিটাগংয়ের


বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক : গত আসরের চ্যাম্পিয়ন রংপুরকে হারিয়ে শুভসূচনা করলো চিটাগং ভাইকিংস। সাত উইকেট হাড়িয়ে পাঁচ বল হাতে রেখে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় চিটাগং। রংপুরের অধিনায়ক মাশরাফি তুলে নেন দুই উইকেট।

এর আগে, রংপুরের দেয়া ৯৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নামে চিটাগং ভাইকিংস। ওপেনিংয়ে আসেন মোহাম্মাদ শাহজাদ ও ক্যামরন ডেলপর্ট। আর ওপেনিংয়ে বল করতে আসে মাশিরাফী। প্রথম ওভারেই তিনি দেন মাত্র ৩ রান। এক ওভার পর ফিরে এসে তুলে নেন ক্যামেরন ডেলপর্টকে। হেলসের কাছে ক্যাঁচ বানিয়ে ৮ রানে ফেরান রংপুরের অধিনায়ক। এর পর আসেন আশরাফুল। বিপিএলের দীর্ঘ চার আসর পরে মাঠে ফিরে ব্যার্থ আশরাফুল। শফিউলের বলে হেলসের হাতে মাত্র ৩ রানে ক্যাঁচ তুলে দিয়ে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান।

এরপর আফগানিস্তানের উইকেট কীপার ব্যাটসম্যান শেহজাদকে তুলে নেন বেনি হাওয়েল। ব্যাক্তিগত ২৭ রান করে এলবি ফাঁদে পড়েন এই আফগান হার্ডহিটার। ভুল বোঝাবুঝিতে সাজঘরে ফিরে যান সিকান্দার রাজা। মুশফিকের পুষ করা বলে দ্রুত রান নিতে গিয়ে রান আউটের শিকার হন জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান রাজা। আউট হবার আগে রাজার ব্যাট থেকে আসে ৩ রান। রাজা আউট হবার পর তার পথে হাঁটা ধরেন মোসাদ্দেক হোসেইন সৈকত। সাত বল খেলে মাত্র ২ রান করে ফরহাদ রেজার বলে রিলে রুশোর হাতে ধরা পড়ে সাজঘরে ফিরে যান তিনি।

দলীয় ৭৭ রানের মাথায় নাইম হাসানকে সরাসরি বোল্ড আউট করে সাজঘরে পাঠিয়ে দেন রংপুরের অধিনায়ক মাশরাফি। নাইম আউট হবার আগে ১০ বল খেলে ১০ রান করেন। চিটাগয়ের স্কোর দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ৭৭ রান।

এদিন মুশফিকুর রহিমের ব্যাট হাসলেও বেশি দূর যেতে পারেননি তিনি। ৩১ বল খেলে ২ চারের সাহায্যে ২১ রান করে সোহাগ গাজির বলে ক্যাচ আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে চলে যান এই নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান।