Home ব্রেকিং ন্যাশনাল ইনফরমেশন প্ল্যাটফর্ম ফর নিউট্রিশন (ঘওচঘ) প্রকল্পের সমঝোতা

ন্যাশনাল ইনফরমেশন প্ল্যাটফর্ম ফর নিউট্রিশন (ঘওচঘ) প্রকল্পের সমঝোতা


বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক :

১৪ জানুয়ারী ২০১৯ তারিখে হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনাল (এইচকেআই) ও বাংলাদেশ
পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এর মধ্যে ন্যাশনাল ইনফরমেশন প্ল্যাটফর্ম ফর
নিউট্রিশন প্রকল্পের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানটি বিবিএস এর সম্মেলন
কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঘওচঘ প্রকল্পটি, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও যুক্তরাজ্যের
আর্ন্তজাতিক উন্নয়ন বিভাগের যৌথ অর্থায়নে, পুষ্টি সংক্রান্ত নীতি
প্রণয়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে,
অপুষ্টি কমানোর সরকারী লক্ষ্য বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে পুষ্টিগত অগ্রগতি পর্যবেক্ষণ
এবং পুষ্টি সংক্রান্ত নীতি গ্রহণের প্রক্রিয়ায় পর্যাপ্ত তথ্য প্রদানের উদ্দেশ্য নিয়ে
কাজ করবে।
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো, সাধারন অর্থনীতি বিভাগ, খাদ্য পরিকল্পনা ও
পরিবেক্ষণ ইউনিট, বাংলাদেশ জাতীয় পুষ্টি কাউন্সিল এবং জাতীয় জনস্বাস্থ্য পুষ্টি
প্রতিষ্ঠান এই প্ল্যাটফর্মের কেন্দ্রীয় প্রতিষ্ঠান। হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনাল এবং
বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষনা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস) ঘওচঘ প্রকল্পের তদারকি
করছে।
সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহা পরিচালক
ড. কৃষ্ণা গায়েন বলেন, একটি বৈশ্বিক প্রকল্প হিসেবে ঘওচঘ যে দশটি দেশে
বাস্তবায়ন করা হচ্ছে এর মধ্যে বাংলাদেশ একটি। দেশের জনগনের পুষ্টি সংক্রান্ত
তথ্যাদি পেতে ঘওচঘ একটি বেইসলাইন হিসেবে কাজ করবে। বিদ্যমান তথ্যের
ভিত্তিতে বিভিন্ন ক্রস সেকশনাল এনালাইসিসের মাধ্যমে পুষ্টি সংক্রান্ত
বিভিন্ন দিক পর্যালোচনা করা হবে। এ কার্যক্রমে পুষ্টি সংক্রান্ত প্রাইমারী ও
সেকেন্ডারী তথ্য এনালাইসিসের মাধ্যমে পলিসি ব্রিফ প্রস্তুত করা হবে। তাছাড়া
বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো এবং হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনাল তাদের জ্ঞান ও সক্ষমতা
এই প্রকল্পে বিনিময় করবে। তিনি আরো বলেন, একটি সুস্থ ও মেধাবী জাতি
পাওয়া আমাদের স্বপ্ন। এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে ঘওচঘ ভূমিকা রাখবে।
হেলেন কেলার ইন্টারন্যাশনাল- বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর জনাব আমিনুজ্জামান
তালুকদার বলেন, এইচকেআই স্থানীয় মালিকানা ও সক্ষমতায় বিশ্বাস করে এবং
সরকার, নাগরিক সমাজ এবং বেসরকারি খাতের যৌথ অংশীদারীত্বের ভিত্তিতে
চলমান ব্যবস্থাকে আরো শক্তিশালীকরণে কাজ করছে। তিনি বলেন, দুটি উপাদানের
সমন্বয়ে ঘওচঘ আরো উন্নত কর্মসূচি গ্রহণ ও নীতি তৈরিতে কাজ করবে।
প্রথমটি হলো কারিগরি উাপাদান যার মাধ্যমে তথ্য বিশ্লেষণের কাজ করা হবে
এবং দ্বিতীয়টি হলো নীতি সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষনের জন্য প্রশ্ন তৈরি এবং
ফলাফল বিতরণ করা। তিরি আরো বলেন যে, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর সহায়তায়
এইচকেআই ঘওচঘ প্রকল্পের নীতি প্রণয়নের অংশ নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী।