Home জাতীয় কাজের স্বীকৃতি পেলেন নরসিংদীর পুলিশ সুপারসহ তিন পুলিশ

কাজের স্বীকৃতি পেলেন নরসিংদীর পুলিশ সুপারসহ তিন পুলিশ

SHARE

বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক :গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন করাসহ কর্মক্ষেত্রে সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পুলিশ বাহিনীর সর্বোচ্চ পদক প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) পদক পেয়েছেন নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মিরাজ উদ্দিন আহমেদসহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মোঃ আব্দুল গাফফার ও রুপণ কুমার সরকার। জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এর অফিসার ইনচার্জ মোঃ গোলাম মস্তুফা পিপিএম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোমবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের প্যারেড গ্রাউন্ডে পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশের ৩ কর্মকর্তাকে মেডেল পরিয়ে দেন। এরমধ্যে পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন পেয়েছেন বিপিএম পদক। উপ পরিদর্শক গাফফার ও রুপণ কুমার পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি পদক। জানা যায়, মিরাজ উদ্দিন আহমেদ ২০০১সালে পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন। গত ১৪ নভেম্বর নরসিংদীর নতুন পুলিশ সুপার হিসেবে যোগদান করেন তিনি। এরআগে তিনি পুলিশ সদর দফতরের এআইজি হিসেবে কর্মরত ছিলেন। মিরাজ উদ্দিন আহমেদ বিসিএস পুলিশ ক্যাডারের ২০তম ব্যাচের কর্মকর্তা। জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ পরিদর্শক মো. আব্দুল গাফফার পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি পদক। তিনি কর্মক্ষেত্রে অপরাধ দমনে বিশেষ ভূমিকা এবং গুরুত্বপুর্ন মামলা সমূহের সফলভাবে রহস্য উদঘাটন, সর্বোচ্চ অস্ত্র, মাদক উদ্ধার এবং প্রচন্ড ঝুঁকি ও সাহসিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের ধারাবাহিক সাফল্যের প্রেক্ষিতে ২০১৫ ও ২০১৬ সালে জাতীয় পুলিশ সপ্তাহে পরপর দুইবার আইজিপি ব্যাজ, এবং ২০১৮সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক (প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদক) পিপিএম সেবা ও ২০১৯ পিপিএম সাহসিকতা পদকে ভূষিত হন।

এছাড়াও ২০১৮ ইং সালে রেঞ্জ ডিআইজি অফিসের মাসিক অপরাধ সভায় ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ এসআই হিসেবে ১ বছরে মোট ছয়বার পুরস্কার পান। অসংখ্যবার নরসিংদী জেলার শ্রেষ্ঠ অফিসার নির্ধারিত হন। এছাড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক রুপণ কুমার পেয়েছেন রাষ্ট্রপতি পদক। তিনিও গুরুত্বপূর্ণ মামলার মূল রহস্য উদঘাটন, বিস্ফোরকদ্রব্য উদ্ধার এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য সর্বোচ্চ এ পদকে ভূষিত হন। রুপণ কুমার ২০১১সালে সরাসরি উপ-পরিদর্শক হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশে যোগদান করেন।