Home ব্রেকিং আত্মসমর্পণের নামে তামাশা চলছে: মোশাররফ

আত্মসমর্পণের নামে তামাশা চলছে: মোশাররফ

SHARE

বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক : চলমান মাদকবিরোধী অভিযানকে তামাশা বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেছেন, ‘মাদক ব্যবসায়ীদের একজন একজন করে ধরা হচ্ছে। আবার পুলিশ অফিসার গিয়ে ঘটা করে ধরা হচ্ছে। পুলিশের কাছে আগেও তো লিস্ট ছিল। তাদের ধরে আবার এমনভাবে মামলা দেয়া হয় যাতে তার আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে বের হয়ে যেতে পারে। কেন তা করা হচ্ছে? এর মূল কারণ একটায় তারা ক্ষমতাসীনের লোক। আত্মসমর্পণের নামে তামাশা চলছে।’

রবিবার(১৭ ফেব্রয়ারী) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জহুরুল হক হলে নারী ও শিশু নির্যাতন: প্রতিরোধ ও প্রতিকার শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এর আয়োজন করেন বিএনপির মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নূরে আরা সাফা।

বিএনপিকেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের কাজ করতে হবে মন্তব্য করে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আমাদের দলের অঙ্গ সংগঠনগুলোর পুনর্গঠন চলছে। ছোট খাট ভুল বোঝা কাটিয়ে আমাদের বিএনপিকেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের কাজ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে যে দিকেই তাকাবেন সকল দিকেই অবক্ষয়। দেশে একনায়কতন্ত্র চলছে, এক ব্যক্তির শাসন চলছে। যেহেতু দেশে গণতন্ত্র নেই, তাই সব কিছুতেই অবক্ষয় দেখা দিয়েছে।’

বিএনপির এই শীর্ষনেতা বলেন, ‘নারী নির্যাতন তীব্র আকার ধারন করেছে। কেন এই অবক্ষয়, সামাজিক মূল্যবোধ তলানিতে গেছেই বলে আজকে আমাদের সমাজকে কূড়েকূড়ে খাচ্ছে।’

খালেদা জিয়া কারাগারে আটক থাকা প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘এক বছর পার হয়ে গেল নানা অযুহাতে বেগম খালেদা জিয়াকে আটকে রাখা হচ্ছে। একজন নারী আরেকজন নারীর ওপর নির্যাতন করছে। এটাই দেশের ইতিহাসে প্রথম একজন প্রধানমন্ত্রী আরেকজন সাবেক প্রধানমন্ত্রীর উপর নির্যাতন চালাচ্ছেন। একজন নারী প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় থাকাকালে নারী, শিশু নির্যাতিত হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘নারী ক্ষমতায়নের মাধ্যমে আমরা যদি এসমস্ত অনাচার বন্ধ করতে চাই তাহলে অধিকার ও গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। তাই খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে গণতন্ত্রের মুক্তি সম্ভব নয়। জনগণ ৩০ ডিসেম্বরের জীবনের বাজি রেখে ভোট দিতে চেয়েছিল, কিন্তু তারা তা পারেননি। তাই জনগণ আমাদের ওপর যে আস্তা রেখেছে আগামী দিনে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে স্বৈরাচারের কবল থেকে দেশকে রক্ষা করবো।’

নুরে আরা সাফার সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. শাহেদা রফিক, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ।

মুল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাবেক মহিলা সংসদ সদস্য রাশেদা বেগম হিরা।