Home খেলাধূলা নিউজিল্যান্ডের রেকর্ড রানে ইনিংস হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ডের রেকর্ড রানে ইনিংস হারের শঙ্কায় বাংলাদেশ

SHARE

বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক : বাংলাদেশের বোলারদের নিয়ে আক্ষরিক অর্থেই খেললো নিউজিল্যান্ড। যাতে রানের নতুন রেকর্ড গড়ে ঘোষণা করে তারা প্রথম ইনিংস। হ্যামিল্টন টেস্টে তাই ইনিংস হারের শঙ্কায় টাইগাররা। তৃতীয় দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১৭৪। কিউইদের প্রথম ইনিংসের চেয়ে এখনও পিছিয়ে ৩০৭ রানে কিউইরা ৬ উইকেটে ৭১৫ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করিয়ে ঘোষণা করে তাদের প্রথম ইনিংস। যা তাদের টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। এর আগে ২০১৪ সালে শারজায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬৯০ রান ছিল সর্বোচ্চ। ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করে অপরাজিত ছিলেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন (২০০*)। তাদের ইনিংস ঘোষণার পর কঠিন চ্যালেঞ্জে নেমে বিপদে পড়েছে প্রথম ইনিংসে ২৩৪ রানে গুটিয়ে যাওয়া বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংসের রানই এখনও অনেক দূরের পথ, তাই হাতে ৬ উইকেট থাকলেও ইনিংস হারই চোখ রাঙাচ্ছে সফরকারীদের। নিউজিল্যান্ডের রান পাহাড়ে চাপা পড়া বাংলাদেশের শুরুটা ছিল দারুণ। তবে ছন্দ ধরে রাখতে পারেনি তারা। হ্যামিল্টন টেস্টে বিপদ আরও বাড়ে তামিম ইকবালের বিদায়ে। তার আউটে সফরকারীরা হারায় ৪ উইকেট। যদিও দিনের বাকিটা আর কোনও উইকেট না হারিয়ে পার করে দিয়েছে বাংলাদেশ। তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন সৌম্য সরকার (৩৯*) ও মাহমুদউল্লাহ (১৫*)। প্রথম ইনিংসের পর দ্বিতীয় ইনিংসেও দাঁড়িয়ে গিয়েছিলেন তামিম। চমৎকার ব্যাটিংয়ে তুলে নেন টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৬তম হাফসেঞ্চুরি। টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরির পথেও হাঁটছিলেন এই ওপেনার। কিন্তু দুঃখজনক আউটে শেষ হয় তার ইনিংস। টিম সাউদির বাউন্সার ছেড়ে দিতে চেয়েছিলেন তামিম। শরীর নিচু করলেও ব্যাট উঁচিয়ে রেখেছিলেন, যার খেসারতই দিতে হয়েছে প্রথম ইনিংসের সেঞ্চুরিয়ানকে। বল তার ব্যাটের কানায় লেগে উঠে গেলে সহজেই গ্ল্যাভসবন্দি করেন উইকেটরক্ষক বিজে ওয়াটলিং। তামিমের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামা সাদমান ইসলামের ব্যাটে ছিল বড় ইনিংসের ইঙ্গিত। তরুণ এই ওপেনারের শুরুটাও হয়েছিল ভালো। চমৎকার কিছু শট দেখা গেছে তার ব্যাট থেকে। যদিও শর্ট বলের শিকার হয়ে তাকে ফিরতে হয় প্যাভিলিয়নে। প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট শিকারি নেইল ওয়াগনারই সাফল্য এনে দেন স্বাগতিকদের। এই পেসারের বলে ৩৭ রান করে সাদমান ফিরে যান ট্রেন্ট বোল্টের ক্যাচ হয়ে।তাতে ভাঙে তামিমের সঙ্গে গড়া তার ৮৮ রানের জুটি। এই জুটি ভাঙার পরই ছন্দপতন বাংলাদেশের। সাদমান আউটের পর দ্রুত প্যাভিলিয়নে ফেরেন মুমিনুল হক ও মোহাম্মদ মিঠুন। প্রথম ইনিংসের ব্যর্থতা কাটিয়ে উঠতে পারেননি তারা। দুজনকেই আউট করেছেন বোল্ট।শুরুতে বল হাতে পরীক্ষা দিতে হলেও ঘুরে দাঁড়িয়ে মুমিনুলের উইকেট নিয়ে শুরু বোল্টের। ৮ রান করা মুমিনুলকে ফেরান তিনি রস টেলরের ক্যাচ বানিয়ে। নিজের পরের ওভারেই আবার উইকেট উদযাপন এই পেসারের। রানের খাতা খোলার আগেই তিনি ফেরান মিঠুনকে।