Home ব্রেকিং বিয়ের ৬মাসের মধ্যেই যৌতুকের বলি হল তামান্না

বিয়ের ৬মাসের মধ্যেই যৌতুকের বলি হল তামান্না

SHARE

বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক : প্রেম করে বিয়ে করার ছয় মাস না পেরুতেই যৌতুকের বলি হলেন তামান্না (১৯)। ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার চরযশোরদী ইউনিয়নের চাঁদহাট গ্রামে। তামান্না নগরকান্দার চাঁদহাট গ্রামের মিলন মল্লিকের মেয়ে এবং সুমন মোল্যার স্ত্রী।

শুক্রবার রাতে সুমনের বাড়ি থেকে তামান্নার লাশ উদ্ধার করে নগরকান্দা থানা পুলিশ। তামান্নার বাবা মিলন মল্লিক অভিযোগ করে বলেন, আমি গরিব মানুষ। ভ্যান চালিয়ে সংসার চালাই। আমার মেয়ে তামান্না বিয়ের পর থেকেই অশান্তির মধ্যে ছিল। জামাই সুমন মাঝে মধ্যেই টাকার জন্য আমার মেয়েকে চাপ দিতো। বেশ কয়েকবার টাকার জন্য মারপিটও করেছে।

এ নিয়ে একাধিক বার শালিস হয়েছে। প্রতিবারই সুমন ক্ষমা চেয়ে বলেছে আর যৌতুক চাইবে না এবং স্ত্রীর উপর নির্যাতন করবে না। কিন্তু সে তার কথা রাখেনি। টাকার জন্য কয়েকদিন আগেও তামান্নাকে মারপিট করেছে। আমি যৌতুক দিতে না পারায় তারা আমার মেয়েকে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে।

স্থানীয়রা জানান, ছয় মাস আগে প্রেমের টানে ঘর ছেড়ে সুমনের সাথে পালিয়ে যায় তামান্না। চাঁদহাট গ্রামের নুর ইসলাম মোল্যার ছেলে সুমনের সাথে বিয়ে হয় তার। কিন্তু তামান্নার কপালে সুখ ছিলনা। বিয়ের পর থেকেই ঝগড়া-মারপিট লেগেই থাকতো। যৌতুক লোভী সুমন বিভিন্ন সময় তামান্নাকে শারিরিকভাবে নির্যাতন করতো।

শুক্রবার রাতে সুমনের বাড়ী থেকে তামান্নার বাবাকে খবর দেয়া হয় তামান্না অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তামান্নার বাবাসহ স্থানীয় কয়েকজন সুমনের বাড়িতে গিয়ে দেখতে পান তামান্নার লাশটি উঠানে পড়ে আছে। বাড়িতে কেউ নেই। ঘর তালাবদ্ধ অবস্থায় রয়েছে।

স্থানীয়দের ধারণা, নির্যাতনের পর তামান্নাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ ফেলে বাড়ি থেকে সবাই পালিয়ে যায়।

নগরকান্দা থানার ওসি (তদন্ত) মিরাজ হোসেন জানান, মেয়ের বাবা মিলন মল্লিক বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। তামান্নার লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। সুমন ও তার পরিবারের অন্য সদস্যরা পলাতক রয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে।