Home ব্রেকিং ডাকসু নির্বাচনে অনিয়মের কারণে ঢাবির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে, বললেন আরেফিন সিদ্দিক

ডাকসু নির্বাচনে অনিয়মের কারণে ঢাবির ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয়েছে, বললেন আরেফিন সিদ্দিক


বিশ্ববিদ্যায়ল পরিক্রমা ডেস্ক : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও গণযোগাযোগ সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ডাকসু নির্বাচন নিয়ে নানা বাধাবিঘ্ন ছিলো। বিভিন্ন ছাত্র সংগঠন যারা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে তাদের নানা অভিযোগ ও দাবি ছিলো। তারপরও কিন্তু ১১ মার্চ ভোট গ্রহণ শুরু হলো। আমরা সবাই মনে করলাম সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে নির্বাচনটি শেষ হবে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও এটিই সত্য এবং বাস্তব যে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে কয়েকটি জায়গায় কিছু ঘটনা ঘটেছে। নির্বাচনে অনাকাঙ্খিত ঘটনার মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের যে সম্মান, ভাবমূর্তি ও মর্যাদা- দারুনভাবে ক্ষুন্ন হয়েছে।

(৩) শুক্রবার রেডিও তেহরানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, যেসব জায়গায় নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে তা অতি দ্রুত তদন্ত কারা প্রয়োজন। তদন্তের মাধ্যমে কি কারণে অনিয়মের ঘটনা ঘটলো, কারে দায়িত্ব অবহেলার কারণে নাকি অযোগ্যতার কারণে নাকি কোনো চক্রান্ত বা ষড়যন্ত্রের কারণে তা তদন্ত হোক! এসব বিষয় স্পষ্ট করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা প্রয়োজন। সদ্য সমাপ্ত ডাকসু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হওয়ার যে ঘটনা ঘটেছে তা দুঃখজনক। আর ওইসব ঘটনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছে ও অনশনে বসেছে। ফলে এসব বিষয়ে খতিয়ে দেখা একান্ত জরুরি।

(৪) তিনি আরো বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি সারা দেশের জন্য একটা অম‚ল্য সম্পদ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র-সংসদের অতীতে যে গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা ছিলো, সেটাকে কোনোভাবে ম্লান হতে দেয়া যায় না। ডাকসু নির্বাচন নিয়ে যে প্রশ্নগুলো উঠেছে, তা সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে সার্বিক চিত্রটি সাধারণ মানুষের সামনে উপস্থাপিত হওয়া দরকার।

(৫) নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে ভিসির এমন বক্তব্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কোনো বক্তব্য নিয়ে আমি মন্তব্য করতে চাই না। তবে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে আমি যা দেখেছি এবং গণমাধ্যমে যা উপস্থাপিত হয়েছে, সে বিষয়ে বলতে চাই। আজকে তথ্য প্রযুক্তির যুগে গণমাধ্যমের দৃষ্টি থেকে কোনো কিছুকে লুকিয়ে রাখা সম্ভব নয়। ডাকসু নির্বাচনে যা ঘটেছে আমার তো মনে হয় সারা দেশবাসী এসব ঘটনা দেখে মর্মাহত হয়েছে। এসব বিষয়ে আমাদের চিন্তাভাবনা করা উচিত যাতে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে।

(৬) তিনি জানান, ডাকসু নির্বাচনে কুয়েত মৈত্রী হল, রোকেয়া হলসহ কয়েকটি হলে যেসব অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে সেসব খতিয়ে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া দরকার। তবে হয়তো উদঘাটিত হবে যে একেবারেরই সীমিত সংখ্যক বা দুই একজনের কারণে অপ্রিয় ঘটনাগুলো ঘটেছে। আর সেই জায়গায় সতর্ক থাকা দরকার।