Home ব্রেকিং এনগেজমেন্ট হয়েছে বিয়ে নয়, দাবি ‘বিয়ের দায়ে’ অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেত্রীর

এনগেজমেন্ট হয়েছে বিয়ে নয়, দাবি ‘বিয়ের দায়ে’ অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেত্রীর

SHARE

বিশ্ববিদ্যালয় পরিক্রমা ডেস্ক : সদ্যঘোষিত ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে বিবাহিত, অছাত্র, হত্যা ও মাদক মামলার আসামিদের নতুন কমিটিতে জায়গা দেয়া হয়েছে, আর ত্যাগিদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। এরইমধ্যে এসব অভিযোগের স্বপক্ষে ফেসবুকে নানা প্রমাণ ফাঁস করতে শুরু করেছেন তারা। এসব পোস্টে পদপ্রাপ্তদের দায়ী করে নানা সমালোচনা করছেন পদবঞ্চিতরা। ছাত্রলীগের নতুন কমিটির পাঠাগার বিষয়ক উপ সম্পাদক রুশি চৌধুরীর বিরুদ্ধেও অভিযোগ ওঠেছে, তিনি বিবাহিত। তবে নিজের বিয়ের খবর উড়িয়ে দিয়েছেন ছাত্রলীগের এই নেত্রী।

বুধবার (১৬ মে) নিজের টাইমলাইনে দেয়া স্ট্যাটাসে তিনি ব্যাখ্যা করেছেন তার বহুল প্রচারিত বিয়ের ছবির। ক্ষোভ প্রকাশ করে রুশি চৌধুরী ফেসবুকে লিখেছেন,

ছাত্রলীগ আমার প্রানের সংগঠন।আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান। ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্রের সাথে সাংঘর্ষিক এমন কিছুই আমি রুশির দ্বারা সম্ভব নয়।পরিবার আমাদের নোংড়ামি শিখায় নি।আমার এগেজমেন্টের ছবি নিয়ে যারা কাঁদাছোড়াছড়ির করছেন তাদের আমি ভেবে নেবো কাপুরুষতা করছেন।

একজন নারীর রাজনৈতিক জীবন কতটা জটিল তা রাজনীতিতে থাকা সেই নারী শুধু উপলব্ধি করে।

হ্যাঁ আমি আমার ভালবাসার মানুষটির সাথে ভবিষ্যত ঘর সংসার গুছাবো বলে মনস্ত করেছি আসার বায়োজৈষ্ঠ্য মুরব্বিদের কথা চিন্তা করে কারন সবার হায়াত মউতের একটি বিষয় আছে তথাপি আক্ষেপ ও নাতি নাতনীর বিষয়ে।আমি বিন্দু মাত্র বিক্ষেপ করি না কারন আমি এখনও সংসার করি না এবং আমার শিক্ষা জীবন শেষ হয়নি(গ্রাফিক্স এর উপর ক্লাস করছি)।

অতএব আমার সংগঠন কে দেবার মত সময় অনেক আছে যা আমি আমার অধিকার থেকে দিয়ে যাবো।

শিক্ষা শান্তি প্রগতি পতাকা ত্বরান্বিত করতে দেশরত্ন শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত শিপাহ্ শালার শ্রদ্ধেয় রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ভাই এবং প্রিয় নেতা গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের নেতৃত্বে আমরা বদ্ধপরিকর।
উল্লেখ্য: আমাদের এনগেইজমেন্ট প্রোগ্রাম টা মোটামোটি ভাবে করা হয়েছে আমার জন্মদিনের দিন। সেদিনই আমি ফেইসবুকে পোস্ট দেই।ছবি আমাদের হাজার হজার হাজার দেওয়া ই আছে আর এনগেইজন্টের প্রোগ্রাম এর ছবি দেওয়ার সময় ও হয় নাই।

এরপর পর পর আমার আপুর টাইফয়েড,ভাতিজা ওয়াসিউ এর মাথা ফাটা এসব নিয়ে ট্রমাতে পরে গিয়েছিলাম। যাই হোক,নেন ছবি নিয়ে খুশি থাকেন। আর বিভ্রান্তি ছড়াবেন না।আমি কোন পরিবারের মেয়ে তা আপনারা অনেকেই না যেনে উলটা পালটা লিখা শুরু করবেন না।শাড়ি ওড়না: আমার মায়ের বিয়ের ❤,আর আমার বিয়ের সময় দেখবেন আমার পোস্টই দেওয়ার সময় হবে না,আমার বন্ধু বান্ধবী আর ছোট ভাই-বোনেদের ই বিশাল প্লান,তাই ওরাই যা দেবার দেবে।

প্রচন্ড ভালোবাসি মাননীয়প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপাকে। আমার রক্তে মিশে আছে “জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় শেখ হাসিনা”

এর আগে গত সোমবার (১৪ মে) ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটির তালিকা প্রকাশ করে সংগঠনটি। এর পরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়ে পদবঞ্চিতরা। ঢাবি হাকিম চত্বর থেকে পদবঞ্চিতরা মিছিল নিয়ে এসে মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে তাতে বাঁধা দেয় সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকপন্থীরা। এসময় পুরো ক্যাম্পাসে থমথমে পরিস্থিতি তৈরি হয়।