Home ক্যাম্পাস খবর নভেম্বরে ফিলিপ কটলারের ই ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট ২০২০

নভেম্বরে ফিলিপ কটলারের ই ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট ২০২০

SHARE

বিশ্বব্যাপী আধুনিক মার্কেটিংয়ের জনক ও মার্কেটিং গুরু হিসেবে খ্যাত প্রফেসর ফিলিপ কটলারের
ই ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট ২০২০ আগামী ৬ ও ৭ নভেম্বর
অনুষ্ঠিত হবে। তবে এবারের সামিট অন্যান্য বছরের চেয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন ও ব্যতিক্রমী। প্রতিটি
ধাপে রয়েছে নতুনত্ব ও আকর্ষণ। বিশ্বব্যাপী কোভিড -১৯ পরিস্থিতি বিচেনায় ‘ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং
সামিট ২০২০’ কে এবার ‘ইলেক্ট্রনিক ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট ২০২০’ ঘোষণা করা হয়েছে। তাই এই
সামিট অনুষ্ঠিত হবে অনলাইনের মাধ্যমে। ভার্চুয়াল জগতের শতভাগ প্রয়োগ হবে এখানে, যা
বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্লাটফর্ম। এ সামিটে ফিলিপ কটলার ও তার দল, বিশ্বের
মার্কেটিং নেতৃবৃন্দ, ইন্ডাস্ট্রি এক্সপার্ট, মার্কেটিং দুনিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা ব্যক্তিবর্গ,
সফল উদ্যোক্তা, নিউরোমার্কেটার, সামাজিক উদ্যোক্তা, ডিজিটাল মার্কেটিং গুরুরা বক্তব্য প্রদান
করবেন।
ইতিহাসের পাতায় এই প্রথম এতো বড় ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট ২০২০ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে,
যেখানে একই সময়ে, একই মঞ্চে ১০৪ দেশের সম্মানিত অতিথিরা যুক্ত থাকবেন। শুধু তাই নয়,
যেখানে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সব মিলিয়ে ৮৪জন স্পিকার থাকবেন। যারা কথা বলবেন মার্কেটিং
এর বিভিন্ন দিক নিয়ে, করবেন চুল ছেঁড়া বিশ্লেষণ। এই সামিটের অন্যতম লক্ষ্য হলো, কোটি কোটি
ভিউয়ার্সকে একত্রিত করা ও জ্ঞানের সাগরে ভ্রমন করানো। আরো আকর্ষণীয় বিষয় হলো, এই
আন্তর্জাতিক সামিটে একাধিক রাষ্ট্রের রাষ্ট্র প্রধানরা উপস্থিত থাকবেন, দেবেন তাদের মূল্যবান
বক্তব্য।
ইতোমধ্যে বাংলাদেশের প্রায় ৬০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও ক্লাবসমুহ সেইসাথে
দেশের সেরা মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানী ও কর্পোরেট কোম্পানীগুলো অংশ নিচ্ছে। এছাড়াও প্রফেসর
ফিলিপ কটলারের লেখা এসেনশিয়ালস অব মার্কেটিং : বাংলাদেশ এডিশন বইতে নিজেদের সাফল্য ও
কোস স্টাডি মনোনয়নের জন্য জমা দেয়া যাবে। যা বিশ্বের সেরা একাডেমিশিয়ানদের প্যানেলের
মাধ্যমে বইতে স্থান পেতে পারে।
যেসব বিষয়ের উপর আলোচনা ও বিশ্লেষণ করা হবে এই সামিটে: নিউ প্রোডাক্ট ডেভেলোপমেন্ট,
পণ্যের মূল্য নির্ধারণ, বিজ্ঞাপন, ডিজিটাল মার্কেটিং, বি টু বি মার্কেটিং, বিক্রিতে অনিশ্চয়তা,
বাধা, কনজুমার প্যাকেজ গুডস, মার্কেটিং, সামাজিক উদ্যোক্তা, ই-কমার্স, ডাটা ম্যানেজমেন্ট, সেবা
মাকের্টিং, ছোট ব্যবসায় খুচরা বিক্রয়, বিলাসবহুল পণ্যের মার্কেটিং, হাই টেক মার্কেটিং, ভ্যালু
ক্রিয়েশন, অনলাইনে বিক্রয়, স্টার্টআপ ফান্ড রাইজিং, স্টার্টআপ মার্কেটিং এন্ড সেলিং, ই-
রিটেইলিং, ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন, উদ্যোক্তা, ম্যানেজমেন্ট অব টেকনোলজি, ইনোভেশন,
জিআইজি ইকোনমিক, ডিজাইন থিংকিং এন্ড মডেলিং, রোবটিক্স প্রোসেস অটোমেশন, কৃত্রিম
বৃদ্ধিমত্তা, ব্লকচেইন, সোস্যাল মার্কেটিং, হেলথ কেয়ার মার্কেটিং, কনসেপ্ট মার্কেটিং, টার্গেটিং
এন্ড পজিশনিং, কনসেপ্ট ডেভেলোপমেন্ট, কাস্টমার ডাটা ম্যানেজমেন্ট, পাবলিক রিলেশন্স ও
আচরণগত বিশ্লেষণ ইত্যাদি।

যারা নিজের ক্যারিয়ার বা ব্যবসাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে পরিচিত করাতে চান, মার্কেটিং এর
মাধ্যমে প্রতিষ্ঠান ও দেশের ভাবমূর্তি গোটা দুনিয়ায় জানান দিতে চান, তাদের জন্য দারুণ সুযোগ
হাতছানি দিচ্ছে। এমন অনেক অজানা তথ্য-উপাত্ত নিয়ে আলোচনা করা হবে এই সামিটে যা আগে
অনেকেই জানেনি বা শোনেনি। ছোট ছোট কিছু টিপস ও উপদেশ যা বদলে দিতে পারে আপনার চিন্তা
জগৎকে।
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের বিশিষ্ট বিপণন নেতৃবৃন্দ, ব্যবস্থাপক, পরিচালক , শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও
বিপণন পেশাজীবীরা অনলাইনের মাধ্যমে নিবন্ধন করে অংশহগ্রহণ করতে পারবেন। তিন ক্যাটাগরিতে
টিকেট বিক্রি করা হবে।
১ম ক্যাটাগরি: এডভান্স লারনারদের (শিক্ষার্থী) জন্য টিকেট মূল নির্ধারণ করা হয়েছে ৩,৮০০/-।
দুইদিন ব্যাপী এই সামিটের পূর্ণ এক্সেস এবং প্রফেসর কটলার স্বাক্ষরিত ই-সার্টিফিকেট পাবে
তারা।
২য় ক্যাটাগরি: করপোরেট ব্যক্তিদের জন্য ৬,৫০০/- টাকা ধরা হয়েছে। যেসব সুবিধা তারা পাবে-
সামিটের পূর্ণ এক্সেস, প্রফেসর কটলার স্বাক্ষরিত ই-সার্টিফিকেট, এক সপ্তাহের জন্য ভিডিওর
মাধ্যমে সকল স্পিকারের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ।
৩য় ক্যাটাগরি: ভিআইপি ব্যক্তিদের জন্য ৮,৫০০/- টাকা ধরা হয়েছে। যেসব সুবিধা তারা পাবে-
সামিটের পূর্ণ এক্সেস, ই-সার্টিফিকেট, এক মাসের জন্য ভিডিওর মাধ্যমে সকল স্পিকারের সঙ্গে
কথা বলার সুযোগ, মাস্টার ক্লাসে (অধিবেশন) অংশ গ্রহণ, কটলার ইমপেক্ট মাস্টার ক্লাসে অংশ
নেয়ায় প্রফেসর কটলার স্বাক্ষরিত ই-সার্টিফিকেট ও বিগ ব্যাঙ্গ বুক ২০২০ এর পক্ষ থেকে
স্পেশাল গিফট।
সবার জন্য থাকছে অংশগ্রহণ শেষে ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট অ্যালাইনাই হবার সুযোগ। যা
বিশ্বব্যাপী নিজের নেটওয়ার্ক তৈরির এক সুবর্ণ সুযোগ। আর শিক্ষক, গবেষক, কর্পোরেট
ব্যক্তিত্বরা যারা উচ্চশিক্ষা, এমফিল বা পিএইডি করবেন তারা বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব
ইন্টারন্যাশনাল হায়ার স্টাডিজ (বিআইআইএইচএস) থেকে বিশ্বের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে
ভর্তির সুযোগ পাবেন।
উল্লেখ্য, এবারের সামিটি যৌথভাবে আয়োজন করেছে নর্দান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ও কটলার
ইমপ্যাকট, ইনকরপোরেটেড। নিবন্ধনের শেষ তারিখ ২৫ অক্টোবর ২০২০।
ওয়ার্ল্ড মার্কেটিং সামিট (ডব্লিউএমএস) হলো বিশ্বব্যাপী একটি স্বতন্ত্র সংগঠন, যার প্রধান
কার্যালয় হলো কানাডার টরেনটোতে। ২০১১ সালে আধুনিক মার্কেটিং এর জনক ফিলিপ কটলারের
হাতে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এই সংগঠনের উদ্দেশ্য হলো বিুশ্বের বিভিন্ন উদ্যোক্তাদের একত্রিত
করা যার ফলে দারিদ্র বিমোচন, ব্যবসার প্রসার, স্বাস্থ্য ও পরিবেশ উন্নতি সাধন। অনুষ্ঠানকে
আরো সুন্দর ও প্রানবন্ত করতে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের কয়েকজন মন্ত্রী মহাদয় ও
বিভিন্ন গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রির প্রধান কর্তা ব্যক্তিরা।