Home ব্রেকিং পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে ত্রুটির সঙ্গে একমত নই’

পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে ত্রুটির সঙ্গে একমত নই’

SHARE

পদ্মা সেতুর রেল সংযোগ লাইনে ত্রুটি ধরা পড়ার খবরে বৃহস্পতিবার সকালে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে প্রকল্প এলাকা পরিদর্শনে এসেছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান ও রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ সময় তারা সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটি একটি জাতীয় সম্পদ। ত্রুটি শব্দটির সঙ্গে আমরা একমত নই। আমরা দেখার জন্য এসেছি। রেল সংযোগ প্রকল্পে যে খুব বড় ধরনের সমস্যা, তা নয়। আদৌ সমস্যা আছে কিনা, তাও বলা যাবে না, যতক্ষণ না বিশেষজ্ঞরা মতামত দেন।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘ত্রুটি তখনই হবে, যখন এটি চূড়ান্তভাবে হবে। এখনও প্রক্রিয়ার মধ্যে আছে। সংশয় যেটি দেখা দিয়েছে, সে রকম হয়তো আরও দেখা দিতে পারে। পৃথিবীর যে কোনো বড় প্রকল্পেই এমন হতে পারে। তবে এখনও নকশা চূড়ান্ত হয়নি, আমাদের কাছে সময় আছে। যেহেতু এটি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, তাই উচ্চপর্যায়ে আলোচনা করে অবশ্যই সমাধান করা হবে।’

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘সেতু বিভাগ ও রেল বিভাগের কাছে নকশা চাওয়া হয়েছে। তারা নকশা দিলেই পুনর্সংশোধন করা হবে। অন্য কোথাও কোনো সমস্যা নেই, শুধু রেল নামার ও ওঠার সময় সমস্যার কথা উঠেছে। এ ক্ষেত্রে সমন্বয় করা হবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী (মূল সেতু) দেওয়ান মো. আব্দুল কাদেরসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এদিকে দুপুরে মাদারীপুরের শিবচরের পাঁচ্চরে পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্তদের চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। এ সময় তিনি বলেন, ‘২০২১ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে পদ্মা সেতুর সঙ্গে সংযুক্ত রেললাইন জনসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী ক্ষতিগ্রস্ত ২৮ জনের মধ্যে এক কোটি ১২ লাখ টাকার পুনর্বাসন সুবিধার চেক প্রদান করেন। এ সময় বিশেষ অতিথি ছিলেন রেল মন্ত্রণালয়ের সচিব সেলিম রেজা, রেলওয়ের মহাপরিচালক মো. শামছুজ্জামান, সিএসসির প্রধান সমন্বয়ক মেজর জেনারেল এফ এম জাহিদ হোসেন, মাদারীপুর জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান, ডরপ চেয়ারম্যান আজহার আলী তালুকদার, শিবচর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আ. লতিফ মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. সেলিম, উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান বিএম আতাউর রহমান প্রমুখ।