Home ব্রেকিং হঠাৎ করে কেউ দলে এলে তাকে প্রথমেই নেতা বানানো যাবে না-ওবায়দুল কাদের

হঠাৎ করে কেউ দলে এলে তাকে প্রথমেই নেতা বানানো যাবে না-ওবায়দুল কাদের

SHARE

মোহাম্মদ হাসানঃ দলের দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করতে হবে। হঠাৎ করে কেউ দলে এলে তাকে প্রথমেই নেতা বানানো যাবে না। সাংগঠনিক জেলা ও সহযোগী সংগঠনের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সাম্প্রদায়িক কোনো গোষ্ঠীকে কোনো অবস্থায়ই দলে অনুপ্রবেশের সুযোগ দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলী, দলের ঢাকা মহানগর শাখা এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময়কালে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা দলের সভাপতিমণ্ডলীর সভায় এই ধরনের নির্দেশনা দিয়েছেন উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দলের দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করতে হবে। হঠাৎ করে কেউ দলে এলে তাকে প্রথমেই নেতা বানানো যাবে না। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে কোনো অবস্থাতেই অনুপ্রবেশের সুযোগ দেয়া হবে না।

তিনি আরও বলেন, দেশে মানুষ কাজে ফিরতে শুরু করেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জীবনের সঙ্গে জীবিকার চাকা সচল হয়েছে। আওয়ামী লীগ এরই মধ্যে সীমিত পর্যায়ে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড শুরু করেছে। জাতীয় সম্মেলনের আগে পরে ৩১টি সাংগঠনিক জেলার সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। করোনা সংক্রমনের বাস্তব কারণে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে কিছুটা বিলম্ব হয়েছে। তবে অধিকাংশ পূর্ণাঙ্গ কমিটি কেন্দ্রীয় দফতরে জমা পড়েছে।

আসন্ন সাংগঠনিক সফরের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আটটি বিভাগের জন্য ৮টি টিম সাংগঠনিকভাবে আমরা প্রস্তুত নেত্রীর কাছে জমা দিয়েছি। অনুমোদন দিলে এই টিমগুলো আমাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমাদের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভা আহ্বান করা হয়েছে আগামী ৩ অক্টোবর। আমাদের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব স্বাস্থ্যবিধি মেনে সভায় অংশগ্রহণ করবেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা জানেন, রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখলের গভীর ষড়যন্ত্রের তথ্য উদঘাটন করেছে আমাদের গোয়েন্দা সংস্থা। যা ইতিমধ্যে গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। বিএনপি-জামায়াত জোট কখনোই জনগণের ইচ্ছার প্রতিনিধিত্ব করতে চায় না। সর্বদা ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে তাদের আস্থা।

এসময় ওবায়দুল কাদের দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে কর্মসূচি ঘোষণা করেন। আওয়ামী লীগ দিনটি উপলক্ষে সারাদেশে মসজিদে মসজিদে দোয়া মাহফিল এবং মন্দির, প্যাগোডা গির্জাসহ সকল উপসানালয়ে বিশেষ প্রার্থনা ও সীমিত পরিসরে আলোচনা সভার আয়োজন করবে। ৩০ সেপ্টেম্বর এতিমখানায় খাবার বিতরণ করা হবে।

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, আব্দুর রাজ্জাক, জাহাঙ্গীর কবির নানক, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফ, দীপু মনি, বিএম মোজাম্মেল হক, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বিপ্লব বড়ুয়া, সায়েম খান প্রমুখ।