Home ব্রেকিং কারা আসছেন যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে?

কারা আসছেন যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে?

SHARE

 

করোণা পরিস্থিতির কারণে আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগী সংগঠন গুলোর বিভিন্ন ইউনিটের কমিটি গঠন প্রক্রিয়া থেমে গেলেও দলীয় সর্বোচ্চ ফোরামের নির্দেশনা মোতাবেক অতি সহসা সকল কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া চলছে। বিগত ৬ ই মে ঢাকা-০৫ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা ইন্তেকাল করলে যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি কাজী মনিরুল ইসলাম মনু দলীয় মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। স্বাভাবিক ভাবেই তাই মহানগর আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির পাশাপাশি যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ এর নতুন নেতৃত্ব নিয়ে আগ্রহ সকলের। সংসদ সদস্য হওয়ায় যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি কাজী মনিরুল ইসলাম মনু স্বাভাবিক ভাবেই বিদায় নেবেন; পাশাপাশি দীর্ঘ ১৬ বছর বৃহত্তর ডেমরা ও যাত্রাবাড়ী থানার সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালন করা হারুনর রশীদ মুন্নার কাঁধে ও রয়েছে কমিটি পূর্নাঙ্গ না করতে পারার ব্যর্থতা এবং সদ্য অনুষ্ঠেয় উপ-নির্বাচনে প্রধান সমন্বয়ক এর দায়িত্ব পালনে ব্যর্থতার ফলাফল হিসেবেই কম ভোটের হিসেবের দায়ভার অনেকেই সাধারণ সম্পাদক মুন্নার কাঁধে যাচ্ছে। তবুও যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ এর সভাপতি হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন হারুনর রশীদ মুন্না, ৪৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.এ মান্নান, বৃহত্তর ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আকবর,প্রয়াত সংসদ সদস্য পুত্র মাহফুজুর রহমান মোল্লা,মাতুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা লুতফর রহমান খান সহ আরো কয়েকজন। যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে তৃণমূল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সকল জায়গায় রব উঠেছে মাতুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মাতুয়াইল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শান্ত নুর খান শান্ত কে ঘিরে। ঢাকা-০৫ রাজনীতিতে কাজী মনিরুল ইসলাম মনুর অতি সজ্জন হিসেবে পরিচিত সাবেক এই ছাত্রনেতা ১/১১ এ শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলনে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। তাছাড়া মাতুয়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শান্ত নুর খান শান্ত সমগ্র যাত্রাবাড়ী এলাকাতে ব্যাপক জনপ্রিয় ক্লীন ইমেজের রাজনৈতিক সংগঠক। তার পাশাপাশি ৪৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও কাউন্সিলর আবুল কালাম অনু সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় থাকলেও কাউন্সিলর হওয়ায় এবং বিভিন্ন অভিযোগ থাকায় তার সম্ভাবনা খুব ক্ষীন।