Home অর্থনীতি বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, বাজার গরম আলুর!

বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, বাজার গরম আলুর!

SHARE

বিশ্ববিদ্যালয় পরিক্রমা ডেস্ক :  রাজবাড়ীতে ফের পেঁয়াজের বাজার দর বৃদ্ধি পেয়েছে। গত দুই দিনের ব্যবধানে দেশি প্রতি কেজি পেঁয়াজের বাজার দর ১৫ টাকা কেজিতে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজি দরে। চলতি সপ্তাহের শনিবার অর্থাৎ গত দুইদিন আগেও প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৫৫ টাকা থেকে ৬০ টাকা কেজিতে।

ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে পেঁয়াজের যথেষ্ট আমদানি থাকা সত্ত্বেও বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা।

আবার অন্যদিকে এখনও বাজারে আলুর দাম কমেনি। বর্তমানে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকা থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে। সরকারি বেঁধে দেয়া দাম ৩৫ টাকায় কোনো ব্যবসায়ীকে আলু বিক্রি করতে দেখা যায়নি। রাজবাড়ীর বাজার গুলোতে নয়দিন পর আলু বিক্রি করতে দেখা গেলেও তা চড়া দামে বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা।

সোমবার সকালে রাজবাড়ীর বড় বাজারে গিয়ে দেখা যায়, মাত্র দু’দিন আগেও যে পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দামে আজ সেখানে কেজিতে ১৫ টাকা বাড়িয়ে বিক্রি করা হচ্ছে ৭০ টাকা কেজি দরে। এতে ক্রেতারা পেঁয়াজ কিনতে এসে সমস্যায় পড়ছেন।

ক্রেতাদের প্রশ্ন, বাজারে পেঁয়াজের আমদানি থাকা সত্ত্বেও কেন পেঁয়াজের দাম বেড়েছে? একইসঙ্গে বাজার স্থিতিশীল রাখতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ প্রয়োজন বলে মনে করেন ক্রেতারা।

অন্যদিকে বিক্রেতারা বলছেন, পাইকারি বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ তাদের কিনতে হচ্ছে ৬৫ টাকা থেকে ৬৮ টাকা কেজি দরে। আর খুচরা বাজারে তারা বিক্রি করছেন ৭০ টাকা থেকে ৭২ টাকা কেজিতে। পাইকারি বাজারে হঠাৎ দাম বৃদ্ধির কারণে তাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে তাই বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে।

বর্তমানে প্রতি মণ পেঁয়াজে বেড়েছে ৪০০ টাকা। তবে আগামী ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে বাজারে নতুন পেঁয়াজ আসার সম্ভাবনা রয়েছে। নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসলে পেঁয়াজের দাম কমবে। বাজারে প্রায় ১০ দিন পর আলু বিক্রি করতে দেখা গেছে। তবে মোকামে আলুর বাজার এখনও বেশি থাকায় তাদের বেশি দামে কিনতে হচ্ছে, বিক্রি করতে হচ্ছে বেশি দামে বলেও জানান বিক্রেতারা।