Home জাতীয় প্রধানমন্ত্রী জানালেন শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরাতে প্রস্তুতি চলছে

প্রধানমন্ত্রী জানালেন শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরাতে প্রস্তুতি চলছে

SHARE

বিশ্ববিদ্যালয় পরিক্রমা ডেস্ক :শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরানোর বিষয়ে সরকার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, শিশুরা যেন আবার তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে আসতে পারে এবং তাদের শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিকভাবে পুনরায় শুরু করতে পারে, সে জন্য সরকার প্রস্তুতি নিচ্ছে। গতকাল রবিবার মিরপুর সেনানিবাসের জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজে শেখ হাসিনা কমপ্লেক্স ডিএসসিএসসিতে জাতীয় প্রতিরক্ষা কোর্স-২০২০ এবং সশস্ত্র বাহিনী যুদ্ধ কোর্স-২০২০-এর স্নাতক অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি বক্তব্য দানকালে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আশা করি ভবিষ্যতে ভালো দিন আসতে পারে। আমাদের শিশুরা তাদের স্কুলে যেতে সক্ষম হবে, তারা স্বাভাবিকভাবে তাদের পড়াশোনা শুরু করবে। আমরা সে লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিচ্ছি। সরকার যখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল, তখনই করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়।

অনলাইন ও টেলিভিশনের মাধ্যমে ক্লাস নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিশুরা যদি স্কুলে যেতে না পারে, তবে এটি তাদের ওপর মানসিক চাপ তৈরি করে।

দেশের শান্তিপূর্ণ অবস্থানের কথা জানিয়ে দেশের সার্বভৌমত্ব হুমকির সম্মুখীন হলে প্রত্যুত্তর দিতেও সর্বদা প্রস্তুত থাকার ওপর জোর দেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা যুদ্ধ চাই না, আমরা শান্তি চাই। কিন্তু কেউ যদি আমাদের সার্বভৌমত্বকে আঘাত করতে আসে তা হলে অবশ্যই আমাদের পাল্টা আঘাত করার সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। এ জন্য আমাদের প্রশিক্ষণ ও প্রস্তুতি নেওয়া উচিত। আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের এটি সর্বদা মনে রাখা প্রয়োজন।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মিয়ানমারের ১০ লাখেরও বেশি নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। বাংলাদেশ তাদের সঙ্গে কখনো সংঘাতের পথে যায়নি। বিষয়টি সমাধান করার জন্য আমরা আলোচনা অব্যাহত রেখেছি। বিশ্ব অঙ্গনে বাংলাদেশ দ্রুত সবাইকে এই সংকট সমাধানের আহ্বান জানিয়েছে। কারণ মিয়ানমারের এই নাগরিকরা দেশের জন্য একটি বড় বোঝা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সশস্ত্র বাহিনী দেশের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে এবং বিশ্ব অঙ্গনে নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় সর্বদা প্রস্তুত থাকবে। আমরা সে লক্ষ্যে কাজ করছি। তিনি সশস্ত্র বাহিনীর সব সদস্যকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে নিজেকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। কোভিড-১৯ মহামারীসহ দেশের সব সংকটে সশস্ত্র বাহিনীর কাজের প্রশংসা করেন তিনি। শেখ হাসিনা বলেন, লাখ লাখ মানুষের সর্বোচ্চ ত্যাগের বিনিময়ে দেশ স্বাধীনতা অর্জন করেছিল। এই ত্যাগ অবশ্যই বৃথা যেতে দেওয়া হবে না। এই স্বাধীনতা আমাদের সাফল্যের সর্বোচ্চ শিখরে নিয়ে যাবে। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে না পারলেও বিশ্ব অঙ্গনে বাংলাদেশকে এখনো উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

অনুষ্ঠানে জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজের কমান্ড্যান্ট লেফটেন্যান্ট জেনারেল আতাউল হাকিম সরোয়ার হাসান বক্তব্য রাখেন।