Home ব্রেকিং ব্যক্তি কেন্দ্রিক রাজনীতি করার দিন শেষ: পরশ

ব্যক্তি কেন্দ্রিক রাজনীতি করার দিন শেষ: পরশ

SHARE

আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, ব্যক্তিগত পকেট ভারি ও ব্যক্তি কেন্দ্রিক রাজনীতি করার দিন শেষ। যুবলীগের নেতাকর্মীদের বলছি, আপনারা রাজনীতি করবেন সাধারণ গরীব-দুঃখী ও অসহায় মানুষের জন্য।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) যাত্রাবাড়ীস্থ দনিয়া কলেজ মাঠে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র ও মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

পরশ বলেন, শুধু নিজ এবং নিজের পরিবারের জন্য ভাবলে হবে না, সমাজের সবার জন্য ভাবতে হবে। প্রতিবেশীদের জন্য ভাবতে হবে, ভাবতে হবে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য। মানুষের অধিকার আদায়ে কখনও পিছপা হবেন না। বঙ্গবন্ধু লড়াই করেছেন বিদেশি ঔপনিবেশিক শক্তির বিরুদ্ধে, আর আমাদের লড়াই করতে হবে ভূমি দস্যু, চাঁদাবাজ ও ঘুষখোরদের বিরুদ্ধে।

চলমান পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে পরশ বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে যে মতপার্থক্য সৃষ্টি হয়েছে তা দূর করতে হবে, সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। আমাদের মনে রাখতে হবে ব্যক্তির চেয়ে দল বড়, দলের চেয়ে দেশ বড়, কোথায় গেল সেই আদর্শ। আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রার্থীর জয় ছিনিয়ে আনা আমাদের সবার মৌলিক দায়িত্ব।

এসময় করোনায় আক্রান্ত যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মাইনুল হোসেন খান নিখিলের জন্য সবার নিকট দোয়া প্রার্থনাও করেন যুবলীগ চেয়ারম্যান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য কাজী মনিরুল ইসলাম মনু যুবলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলাসহ সাধারণ মানুষের পাশে যুবলীগের স্বঃফূর্ত অংশগ্রহণ প্রশংসার দাবিদার।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনউদ্দিন রানার সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রাজনীতি বিশ্লেষক সুভাষ সিংহ রায়, যুবলীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. মামুনুর রশীদ, মো. রফিকুল ইসলাম, মোয়াজ্জেম হোসেন, সুভাষ চন্দ্র হাওলাদার, ইঞ্জি. মৃনাল কান্তি জোদ্দার, আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বিশ্বাস মুতিউর রহমান বাদশা, সুব্রত পাল, রফিকুল আলম সৈকত জোয়ার্দার, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মাজহারুল ইসলাম, ডা. হেলাল উদ্দিন, মো. সাইফুর রহমান সোহাগ, মশিউর রহমান চপল, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দফতর সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ  প্রমুখ।

SHARE