Home ক্যাম্পাস খবর “স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্ট বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে”

“স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্ট বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে”

SHARE

পরিক্রমা ডেস্ক : খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) এর সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের Sustainable Capacity building to reduce Irreversible Pollution by Plastics (SCIP Plastics Project)” শীর্ষক গবেষণা প্রজেক্টের কিক—অফ মিটিং এ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ¦ তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, “দেশের টেকশই উন্নয়নের লক্ষমাত্রা অর্জনের জন্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ভূমিকা অনেক বেশী। ২০২০ সাল থেকে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সক্ষমতার হার অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্টবর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নয়ণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে”। ২৪ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মিহির রঞ্জন হালদার বলেন, “প্লাস্টিক বর্জ্য আমাদের জন্য অনেক বড় সমস্যা। স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্টের মাধ্যমে আমরা সমস্যা সমাধানে আরো একধাপ অগ্রগতি ঘটাতে সক্ষম হবো”। সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন (অনলাইনে সংযুক্ত) বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর চেয়ারম্যান (অতিরিক্ত দায়িত্ব) প্রফেসর ড. দিল আফরোজা বেগম ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ রোকনুজ্জামান। প্রজেক্টের বিভিন্ন বিষয়ে টেকনিক্যাল বক্তব্য প্রদান করেন স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্টের প্রজেক্ট লিডার এবং জার্মানীর বাহস ইউনিভার্সিটি বাউমার এর প্রফেসর ড. ইঞ্জি. ইকার্ড ক্রাফট, ইউজিসি’র সদস্য এবং স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্টের সায়েন্টিফিক এক্সপার্ট প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর, কুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ও স্কিপ প্লাস্টিকস প্রজেক্টের প্রজেক্ট ডাইরেক্টর ড. মোঃ রাফিজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে বিশ^বিদ্যালয়ের ডীনগণ, ইনস্টিটিউট পরিচালক, বিভাগীয় প্রধান, পরিচালক, দপ্তর প্রধান, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কেসিসি’র কাউন্সিলর, কেসিসি’র কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট প্রজেক্টের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, ০১ এপ্রিল ২০২২ ইং তারিখ হতে এই প্রজেক্টের কার্যক্রম শুরু হয়েছে এবং প্রজেক্টটির মেয়াদ ৩০ নভেম্বর ২০২৪ ইং তারিখে শেষ হবে। প্রজেক্টটি বাস্তবায়নে রয়েছে জার্মানীর বাহস ইউনিভার্সিটি বাউমার এবং সার্বিক অর্থায়নে রয়েছে জার্মানীর ফেডারেল মিনিস্ট্রি অব দি এনভাইরনমেন্ট, ন্যাচার কনজারভেশন নিউক্লিয়ার সেফটি ও কনজুমার প্রটেকশন। প্রজেক্টে কার্যক্রম হিসেবে জার্মানীর বাহস ইউনিভার্সিটি বাউমার, কুয়েট ও কেসিসি’র সাথে সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। প্রজেক্টের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার লক্ষ্যে একটি এ্যাডভাইজরি কমিটি রয়েছে। এই প্রজেক্টের চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন ফিল্ডে পিএইচড এবং এমএসসি (সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং) ডিগ্রী প্রদান করা হবে। এছাড়া, খুলনা সিটি কর্পোরেশনে একটি জনসচেতনতা কেন্দ্র স্থাপন করার কাজ শুরু হয়েছে। এই প্রজেক্টটি বাস্তবায়নে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি), কেসিসি ও মংলা পৌরসভা এবং খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ২৪ নং ওয়ার্ডের নিরালা জনকল্যান সমিতি সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। এছাড়া, প্রজেক্টের সাথে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয় (চুয়েট) সক্রিয় সহযোগী হিসেবে রয়েছে।

SHARE